গল্প।। একটি স্বপ্নের অপমৃত্যু এবং তার পর।।রাবেয়া বশরী বর্না।।

গল্প সাহিত্য
Share on Social Media
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আজ ফুলের মনটা বেশ ভালো কারণ আজ ওর জীবনের অনেক বড় একটা স্বপ্ন সত্যি হবার বার্তা এসেছে। আজ ইতি প্রকাশন থেকে চিঠি এসেছে, ফুল যেই লেখা গুলো পাঠিয়েছে সেগুলো মনোনীত হয়েছে, মনোনীত লেখা গুলো বই আকারে প্রকাশিত হবে। বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠিত হবে ২৬ শে মার্চ পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে। সেখানে ফুলকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ফুল এখন অপেক্ষা করছে সেই দিনের জন্য, কবে আসবে সেই দিনটি। আচ্ছা ওর প্রিয় কবি – লেখকরা থাকবে তো সেখানে? কোন ড্রেসটা পরে যাবে সে, এরকম শত প্রশ্ন আর শত প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেল ওর তখন থেকেই। প্রতিদিন বিকেলে ফুল একটু ঘুমায় কিন্তু আজ ওর ঘুম আসছে না তাই ও ভাবলো একটু ছাদে যাবে, যাওয়ার আগে ও ওর আপুকে বলল,আপু আমি ছাদে যাচ্ছি দরজাটা একটু লাগিয়ে দাও, এই বলে সে ছাদে চলে গেল।
ছাদে আজ অনেক ফুল ফুটেছে, দুপুর বেলা এক পশলা বৃষ্টি নেমেছিলো। এখনো বৃষ্টির কনা টপটপ করে ঝরে পরছে ফুলগুলো থেকে, ছাদের একদম কিনারায় আছে ঝুমকো জবার গাছ। ফুলের খুব ইচ্ছে হলো একটি ঝুমকো জবা ছিঁড়ে আনতে —-।

ফুলের আপু টিভি দেখছিলো, হঠ্যাৎ সে একটা বিকট শব্দ শুনতে পেলো, তার মনটা ভয়ে আঁতকে উঠলো,দৌড়ে গিয়ে সে জানালা দিয়ে দেখল সত্যি সে যা ভেবেছিলো তাই, চারিদিকে লোকজনের ভীড় আর মাঝখানে পরে আছে ফুলের রক্ত মাখা ক্ষত – বিক্ষত দেহ।

রাস্তার লোকজনই ধরাধরি করে ফুলকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছে, ফুলের সাথে এসেছে তার মা, বাবা আর ভাই বোন। তারা সবাই ফুলকে নিয়ে উদ্বিগ্ন। ডাক্তাররা বলল, ফুলকে অপারেশন করতে হবে কিন্তু তাতে সে ভালো হবে কিনা নিশ্চিত নয় তাই আশঙ্কা নিয়ে ফুলের অপারেশন হলো, সবার দোয়ায় অপারেশন সাক্সেসফুল হলো কিন্তু এখনো সে হাঁটতে পারছে না। ডাক্তাররা বলেছে আস্তে আস্তে হাঁটার প্র্যাকটিস করতে, হয়তো একসময় সে হাঁটতে পারবে, ডাক্তাররা ফুলকে রিলিজ করে দিয়েছে।
বিকেলবেলা এ্যাম্বুলেন্স করে ফুলকে নিয়ে আসা হলো ট্রলিতে শুইয়ে ফুলকে সিড়ি দিয়ে উপরে উঠানো হলো, বাসার ভেতর ঠুকতেই ফুল দেখল জুমকো – ঝবা, বেলী, গোলাপসহ নানা ফুলের মহাসমারহ। ফুলের মিষ্টি গন্ধে ফুলের খুব ভালো লাগছিল, হঠ্যাৎ ফুলের মনে পরলো ২৬ শে মার্চ দিনটির কথা। সে বাবা কে জিজ্ঞেস করলো, বাবা আজকে কত তারিখ? বাবা বলল: ২৯ শে এপ্রিল। ফুল বুঝতে পারলো, ২৬ শে মার্চ চলে গিয়েছে অনেক আগেই তাই তার মনটা আবারও খারাপ হয়ে গেল কিন্তু পরক্ষনেই ফুলের মনে হলো আবারও সে হাঁটতে পারবে আবারও কলেজে যাবে আর আবারও আসবে হয়তো নতুন কোনো ২৬ শে মার্চ—।

রাবেয়া বশরী বর্না, মিরপুর, ঢাকা।

তারিখঃ ২৪/০৭/২০২০ইং।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *