আধুনিক যুগে ব্যবসায় টিকে থাকার কলা কৌশল

আধুনিক যুগে ব্যবসায় টিকে থাকার কলা কৌশল

January 12, 2019 0 By Md. Rabiul Islam

অনেকেই চাকুরী থেকে ব্যবসা করতে বেশি পছন্দ করেন। আর ব্যবসা যেমন মানুষকে দ্রুত উন্নতি করতে পারে তেমনি ব্যবসায় লোকসানের শিকার হয়ে অনেকেই পথে বসে যান। বর্তমান ব্যবসায় টিকে থাকাটাও বেশ জটিল। আপনার চারপাশে এখনর প্রচুর প্রতিযোগিতা।এই প্রতিযোগিতায় আপনাকে টিকে থাকতে হলে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে নতুন নতুন পদ্ধতি গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় টিকতে পারবেন না। আজ আমি লিখবো- আধুনিক যুগে ব্যবসায় টিকে থাকার জন্য কয়েকটি উল্লেখযোগ্য বিষয় নিয়ে।চলুন, তাহলে শুরু করা যাক।

 

১। সেল সেন্টার/দোকানের অবস্থানঃ

আপনার পণ্য গুলো বিক্রির স্থান অথাৎ সেল সেন্টার বা দোকানটি হতে হবে অবশ্যই কোন জনবহুল স্থানে বা মার্কেটের ভাল অবস্থানে।যেখানে ক্রেতাদের চলাচল বেশি। মার্কেটের প্রথম দিকের বা সম্মুখের দোকান গুলোতে ক্রেতাদের ভিড় বেশি থাকে। তাই ব্যবসায় নামার সময় প্রথমে এই সকল দোকান ঘর নেওয়ার চেষ্টা করবেন।

 

২। ডেকোরেসনঃ

আপনার দোকন বা শো রুমের ডেকোরেসন হতে হবে আকর্ষনীয়। যা ক্রেতাদেরকে আকৃষ্ট করবে। অনেক সময় কেউ কেউ সুন্দর ডেকোরেসন দেখে পণ্য ক্রয়ের উদ্দেশ্য না থাকা সত্তেও ভিতরে প্রবেশ করে। তাদের সাথে ভাল ব্যবহার করুন।তাহলে পরবর্তীতে তারা কোন পণ্য ক্রয় করতে চাইলে আপনার কাছেই যাবেন। মানুষ কে আকৃষ্ট করতে দোকানের ডেকোরেসনে সর্বদা বৈচিত্র্য আনুন।অন্যদের থেকে একটু পৃথক ডেকোরেসন করার চেষ্টা করুন।

 

৩।পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতাঃ

পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। তাই আপনার দোকান বা শো রুম অবশ্যই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন। সুগন্ধী রুম স্প্রে ব্যবহার করুন। দোকানের পাশাপাশি আপনি নিজেও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি থাকুন। মার্জিত পোষাক পরুন।

 

৪। সেলসম্যানদের করণীয়ঃ

আপনার দোকান বা শো রুম পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার সাথে সাথে আপনি নিজে এবং সেলসম্যানদের কেও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ও পরিপাটি থাকতে হবে। সকলের জন্য একটি ভদ্র ও পরিপাটি ইউনিফর্ম থাকলে ভাল হয়। সেলসম্যানদের সর্বদা ক্রেতাদের সাথে সুন্দর ব্যবহার করতে হবে। মনে রাখবেন, সকল ক্রেতা সমান নয়। কেউ কেউ আপনার সাথে খারাপ ব্যবহারও করতে পারেন।কিন্তু আপনাকে কখনো ক্রেতাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করা যাবে না।ক্রেতাদের সাথে এমন ব্যবহার করবেন, যেন ক্রেতা আপনার প্রেমে পড়ে যান। মুখে সর্বদা হাসি রাখুন।আজ ঐ ক্রেতা আপনার নিকট থেকে কিছু না কিনলেও আপনার ব্যবহারে মুগ্ধ হয়ে তিনি অন্যদিন আপনার দোকানে আসবেন, পণ্য ও কিনবেন। দুজনের মধ্যে ভাল সম্পর্ক তৈরী হয়ে গেলে তিনি বার বার আসবেন আপনার দোকানে। এ সকল ক্রেতা আপনার শো রুম বা দোকানে এলে তাকে আপ্যায়ন করতে ভুল করবেন না।আর একটা  কথা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সেটা হল সকল ক্রেতাকে সমান গুরুত্ব দিবেন। বেশি দামী কোন পণ্যের ক্রেতাকে যেমন গুরুত্ব দিবেন, তেমনি ছোট কোন পণ্যের ক্রেতাকেও একই গুরুত্ব দিবেন।

 

৫।অতিরিক্ত লার্ভ বর্জনঃ

আপনাকে অবশ্যই অতিরিক্ত লাভ বর্জন করতে হবে। কোন পণ্যের মূল্য বেশি রাখবেন না। কোন পণ্যে ভেজাল মেশাবেন না। ওজনে কম দিবেন না। সর্বপরি সৎভাবে ব্যবসা করে ক্রেতাদের নিকট বিশ্বস্ত  হতে চেষ্টা করুন। মনে রাখবেন, ক্রেতারা বিক্রেতাদের কে বিশ্বাস করে বিভিন্ন পণ্য ক্রয় করেন।  তাই কখনো তাদের বিশ্বাসের অমর্যাদা করবেন না।ক্রেতা কোন পণ্যের এমন একটি দাম বললো, যে দামে আপনি বিক্রি করতে পারছেন না। তখন আপনি ভদ্রভাবে বলুন, সরি স্যার/ভাই/ম্যাডাম। এই মূল্যে বিক্রি করা সম্ভব হচ্ছে না। আপনাকে এটা নিতে হলে— টাকা দিতে হবে। ক্রেতার দরাদরি তে কখনো রাগ করবেন না। সর্বদা মুখে হাসি রাখবেন।

 

৬। ভাল মানের পণ্য রাখুনঃ

আপনি যে ক্যাটাগরীর পণ্যই বিক্রি করুন না কেন, অবশ্যই ভাল মানের পণ্য বিক্রি করুন।নকল, মেয়াদউত্তীর্ণ, ভেজাল কোন পণ্য দোকানে রাখবেন না, বিক্রি ও করবেন না।এতে আপনার ব্যবসা যেমন স্থায়ী উন্নতি করতে পারবে না, তেমনি যে কোন সময় আপনার জেল, জরিমানাও হতে পারে।আর কোনভাবে এপারে ভেজাল ব্যবসা করে পার পেয়ে গেলেও পরপারে গিয়ে মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট ধরা পড়বেন।

 

৭।প্রচার-প্রচারনাঃ

ব্যবসার একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক হল প্রচার প্রচারনা।বিশ্বের বড় বড় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো প্রচার-প্রচারনায় লক্ষ কোটি টাকা ব্যয় করছে।কারন প্রচারেই প্রসার। যত প্রচার করবেন, ততো আপনার ব্যবসা ভাল হবে। আপনিও আপনার সামর্থ্যের মধ্যে প্রচার-প্রচারনা চালান। যেমন- স্থানীয় পত্র-পত্রিকা, এফএম রেডিও, টিভি, অনলাইন ব্লগ, ম্যাগাজিন ও সোস্যাল মিডিয়ায় বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।পোস্টার বা লিফলেট এর মাধ্যমেও বিজ্ঞাপন দিতে পারেন। বর্তমানে বইছে ইন্টারনেটের জয়জয়াকার।তাই ইন্টারনেট ভিত্তিক মিডিয়ায় বিশেষ করে ফেসবুক, টুইটার, অনলাইন রেডিও, টিভি ও নিউজ পোর্টালে বিজ্ঞাপন দিন। এছাড়া বাংলাদেশে বর্তমানে কিছু নতুন নতুন অনলাইন টিভি চ্যানেল, ম্যাগ্যাজিন, ব্লগ/পত্রিকা রয়েছে। যেখানে খুবই কম মূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।যেমন, www.mbtv24.com, http://techtunes.com.bd, http://joytv24.com www.bikroy.com, ইত্যাদি। এসব সাইটে খুবই কম মূল্যে বিজ্ঞাপন দেওয়া যায়। সাইটে ভিজিট করে বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা দেখে নিতে পারেন। তারপর আপনার পছন্দমত কোন প্যাকেজ বেছে নিয়ে বিজ্ঞাপন দিন।

 

৮। অনলাইনে পণ্য বিক্রয়ঃ

আধুনিক যুগে ব্যবসায় টিকে থাকার সর্বোত্তম উপায় হল- অনলাইনে পণ্য বিক্রয়। অনলাইনে বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করে দেশে-বিদেশে অনেকেই আজ প্রতিষ্ঠিত।এদের মধ্যে কারও আবার বাজারে কোন সেল সেন্টার বা দোকানও নেই। তারা বাড়িতে বসেই এই ব্যবসা চালাচ্ছেন। বর্তমানে বাংলাদেশেও ইকমার্স বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। যা দিন দিন আরও বাড়ছে। আপনি এখন যে কোন পণ্য অনলাইনে বিক্রয় করতে পারেন। এজন্য সর্বপ্রথম একটা অনলাইন শপ (ইকমার্স ওয়েবসাইট) তৈরী করতে হবে। নিজে তৈরী করতে না পারলেও সমস্যা নাই। কারণ বাংলাদেশে এরকম ওয়েব সাইট তৈরী করে দেওয়ার জন্য হাজারো প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যা গুগুলে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন।যদি আপনি নিজে ওয়েব সাইট তৈরী করতে না চান, তাহলে কোন ইকমার্স সাইটে গিয়ে ফ্রিতে মার্চেন্ট একাউন্ট করে তাদের মাধ্যমেও আপনার পণ্য বিক্রি করতে পারবেন। এজন্য আপনি দেশের বিভিন্ন ইকমার্স সাইটের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। আধুনিক যুগে আপনাকে ব্যবসায় টিকে থাকতে হলে প্রযুক্তি ব্যবহার করে এভাবে নিজের পণ্য বিক্রি শুরু করুন। তবে একটা কথা মনে রাখবেন, অনলাইনে বিশ্বাসের উপর কেনা বেচা হয়। তাই কখনো কারও বিশ্বাসের অমর্যাদা করবেন না। সৎভাবে ব্যবসা করুন। তাহলে ব্যবসায় উন্নতি করতে পারবেন। ইনশা আল্লাহ। সকলের সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামনা করে আজ এখানেই ইতি টানছি। পরবর্তীতে ইকমার্স এর উপর আরো বিস্তারিত লেখার চেষ্টা করবো। ইনশা আল্লাহ।

 

মোঃ রবিউল ইসলাম, তেরখাদা, খুলনা। তারিখঃ ১২/০১/২০১৯ইং।